ইংরেজিতে ব্যর্থ হওয়ার কারণ ও ভোকাবুলারি শিখার কৌশল

ইংরেজিতে ব্যর্থ হওয়ার কারণ ও ভোকাবুলারি শিখার কৌশল

:
বিশ্লেষণেঃ সত্যজিৎ চক্রবর্ত্তী

আপনি ইংরেজিতে দুর্বল! তার মানে হয় আপনি কিভাবে বাক্য গঠন করতে হয় সেটা জানেন না, অথবা আপনি বাক্য গঠন করতে জানেন কিন্তু যেভাবে আপনি বাক্যটি গঠন করতে চাইছেন, সেখানে আপনি অনেক শব্দের ইংরেজি অর্থ জানেন না। কিংবা আপনি বাক্য গঠন ও শব্দের অর্থ ২টাতেই দুর্বল। যেমন -৩৫ লিখিত পরীক্ষায় একটা অনুবাদ এসেছে যার একটা শব্দ ছিল “বীরাঙ্গনা “যার ইংরেজি অর্থ ৯৫% শিক্ষার্থী ভুল করেছে।
:
তাহলে ইংরেজিতে ভাল করার উপায় কী? যদি আপনি প্রচুর ইংরেজি শব্দ জানেন তাহলে আপনি খুব সহজে যেকোন কথা লিখতে পারবেন। হোক সেটা শান্তি চুক্তি, প্যালেস্টাইন যুদ্ধ বা তার চেয়েও কঠিন বিষয়। কিন্তু যদি বাক্য গঠন ঠিক না থাকে তাহলে তা জেনে ও না জানার মতই কাজ হবে। এক্ষেত্রে প্রতিদিন প্রচুর শব্দ শিখতে হবে,সেই সাথে শব্দ দিয়ে বাক্য গঠনের কৌশলটা ও রপ্ত করতে হবে। অনেকে বলেন এটা কঠিন কাজ। আমি বলছি, এটা অতি মাত্রাই সহজ কাজ। শুধু ২/৩মাসের চেষ্টায় ফ্রি হ্যান্ড লেখা সম্ভব। শুধু একটু কৌশলী হলেই প্রচুর শব্দ শেখা যায়।
:

ইংরেজিতে ভাল করতে হলে প্রচুর শব্দ জানা থাকতে হবে। তবে কীভাবে সম্ভব এত শব্দ এই সংক্ষিপ্ত সময়ে মুখস্ত করা? দৈনিক ২০ ইংরেজি শব্দ শিখা যেতে পারে। অবাক হলেন? এত শব্দ শিখাটা পাগলের প্রলাপ মনে হচ্ছে? আসুন প্রমান করি এই কাজটা কত সহজ। সকালে পড়তে বসার আগে ৫ টা শব্দ শিখে আপনার মূল পড়া শুরু করুন। মুল পড়া শেষ করার আগে আরো ৫ টা শব্দ শিখে নিন। রাতে আবার যেকোন পড়া শুরু করার আগে ৫টা শব্দ শিখে মূল পড়া শুরু করুন। একইভাবে রাতে মুল পড়া শেষ করার আগে আরো ৫টা শব্দ শিখে নিন। হয়ে গেল ২০টা শব্দ শিখার কাজ। এবার ঘুমাতে যাবার আগে একটু সারাদিনের শিখা শব্দগুলোর প্রতি নজর দিন।

আপনি হয়তো খেয়াল করে থাকবেন আমি কিন্তু শব্দ শিখার জন্য আলাদা সময় করতে বলিনি। আপনি আপনার প্রস্তুতি নেওয়ার ফাঁকেফাঁকে এই শব্দ শিখে ফেলছেন। এতে আপনার মূল পড়ালেখায় ও কোন ক্ষতি হচ্ছেনা। এইবার আসা যাক, ঐ ২০টা শব্দ শিখতে কতক্ষন সময় লাগতে পারে। ৫টা শব্দ শিখতে সর্বোচ্চ সময় লাগবে ৩ মিনিট। সুতরাং ২০টা শব্দ শিখতে সময় লাগতে পারে ১২ মিনিট। তবে ২০টা একসাথে শিখতে গেলে কারোই মনে থাকবে না,এবং এই পদ্ধতিকে তখন কঠিন মনে হবে।

:

শব্দ শিখার ক্ষেত্রেও কৌশলী হতে হবে। ২০টা শব্দ ডিকশনারির একেবারে প্রথম থেকে শুরু করাটা হবে ভুল পদ্ধতি। ২০টা শব্দের মধ্যে আপনি ২টা a দিয়ে, ৩টা b দিয়ে, ২টা c দিয়ে এভাবে শিখবেন। এতে করে একদিনে পুরো ডিকশনারি একবার বিচরন করা হবে। প্রতিদিন এভাবে চললে দেখবেন ১ মাসেই এ টু জেড ৬০০টা শব্দ আপনার মুখস্থ হয়ে যাবে। এই ৬০০টা শব্দ কিন্তু সেসব শব্দ যেগুলো আপনি আগে জানতেন না। সুতরাং এভাবে ৩ মাস কাজ চালাতে পারলে আপনার জানা শব্দভাণ্ডারে নতুন আরো ১৮০০টা শব্দ যোগ হবে। পাশাপাশি গ্রামারের অনুশীলন করে গেলে আপনি যেকোন বিষয় ফ্রি হ্যান্ড লিখতে পারবেন।

‪#Compiled_by‬ :

SATYAJIT CHAKRABORTY

Ex-president,

Social Law Awareness Association.

You may also like...